নারী দেহ নিয়ে লালসা তোমার

হায়রে অভাগা জাতি, বদলেছ রাতারাতি। ভীড় দেখলেই নারী দেহ নিয়ে করতেছ হাতাহাতি। নারী দেহ নিয়ে লালসা তোমার,সারাক্ষণ করো হাসফাঁস মনে কি পড়েনা এই তুমিইতো নারী দেহে ছিলে দশমাস। হেটে যায় মেয়ে তুমি সেটা দেখে বলে ওঠো খাসা মাল তোমারও যে এক বোন আছে, সেটা ভুলে হলে বেসামাল। অন্যের বোন মেয়েরা সবাই মাল হয়ে যায় চোখে

রেজাল্ট কিন্তু দিচ্ছেনা

দেব দেব করে MBBS এর রেজাল্ট কিন্তু দিচ্ছেনা এই ফাঁকে কিছু ঘটে যেতে পারে কেউ তার খোঁজ নিচ্ছেনা। বাড়িতে কোন রান্না না করে হোটেলে যেমন খাওয়া যায় প্রশ্ন পত্র ফাঁস না করেও কখনোবা চান্স পাওয়া যায়। চোখ কান সব খোলা রাখো ভাই কি যে হয় সব আড়ালে গ্যাঞ্জাম লাগে এই কথা নিয়ে প্রতিবাদ করে দাড়ালে।

প্রকৃতি প্রেমীর চলে যাওয়া

আমরা যখন বাসার ছাদে টবে লাগানো বনসাইটাও টিকমত চিনে উঠতে পারিনি তুমি তখন যান্ত্রিক এই নগরীর অলিতে গলিতে দেয়ালের ফাঁকে ফাঁকে জন্ম নেওয়া প্রতিটি বৃক্ষ তরুলতাকে চিনেছ, সেগুলোকে মানব সন্তানের মত একএকটি নামে তুমি ডাকতে। শিমুলিয়া গ্রামের আকাশ আজ মেঘে ঢাকা সেই শোকাচ্ছন্ন মেঘ সারা বাংলার আকাশটাকেই ঢেকে ফেলেছে লজ্জাবতী লতারা যেমন হাতের ছোয়ায় নতজানু