যেখানে যেটুকু পাই তাতেই আমি মানিয়ে নেই

আমি যখন ক্লাস ইলেভেনে তখন ক্লাস টেনের এক ফলোয়ার যার নাম আব্দুল আলীম সে কবিতা লিখতো এবং বিভিন্ন ছোটখাট পত্রিকায় তা ছাপা হতো। ওর কবিতা

তার আগমন

মেঘাচ্ছন্ন আকাশকে উপেক্ষা করে বইপ্রেমীরা কিংবা খুশিতে ঠেলায় ভাল্লাগে ঘোরতে টাইপের অগণিত বিভিন্ন বয়সী মানুষ আজ বইমেলায় এসেছিলেন।লিখিত নিয়মে শেষ দিন বলে কথা।অগণিত পাঠক দর্শক

টুনির মায়ের জন্মদিন

মুমু! মানে টুনির মা। দুই অক্ষরের একটি নাম।ভারি সুন্দর।ভারি সুন্দর তার কথা বলা,তার কিশোরী বয়সের উচ্ছলতা তার হাসি তার দুষ্টুমী।সে খুব ছবি তুলতে ভালোবাসে।দুই ভাই

শিয়ালদহর পথে

শিয়ালদহ ইস্টিশানে নেমেছি।চারদিকে এতো মানুষের ভীড় আমি জীবনেও দেখিনি।আমার কাছে ভীড় মানেই গুলিস্থান,শাখারি বাজার নয়তো বড়জোর ফার্মগেট।কিন্তু শিয়ালদহ ইস্টিশানের ভিড় দেখে মনে হলো বাংলাদেশের ওই

ন্যু ক্যাম্পের অচেনা আগন্তুক

একটা ট্রেন মিস হয়ে গেলেও চান্স থাকে পরের ট্রেনটা পাবো,কিন্তু জীবনে এমনও সুযোগ আসে যা একবার মিস হয়ে গেলে আর কোন দিন দ্বিতীয়বার সুযোগ আসবে

তোফায়েলের প্যারেন্টস ডে

রাতে কারো ঘুম আসছিলনা। লাইটস অফের ঘন্টা বাজলেই বা কার কি। চিন্তা একটাই কালতো প্যারেন্টস ডে।ক্যাডেট লাইফে প্যারেন্টস ডে মানেই ক্যাডেটদের ঈদের দিন।হয়তো আমারও। কিন্তু

বইমেলায় পাওয়া উপহার

পাঠক হিসেবে আমি মধ্যমানের।বই পড়তে আমার ভাল লাগে।সাহিত্য,দর্শন,ইতিহাস,শিল্পকলা সহ নানা বিষয়ে পড়ার চেষ্টা করেছি এবং সেটা অব্যহত আছে।যে মানুষটি জীবনে প্রথম বই লিখেছে এবং আমাকে