বইমেলায় পাওয়া উপহার

পাঠক হিসেবে আমি মধ্যমানের।বই পড়তে আমার ভাল লাগে।সাহিত্য,দর্শন,ইতিহাস,শিল্পকলা সহ নানা বিষয়ে পড়ার চেষ্টা করেছি এবং সেটা অব্যহত আছে।যে মানুষটি জীবনে প্রথম বই লিখেছে এবং আমাকে দিয়েছে তার বইও আমি খুব মন দিয়ে পড়েছি এবং তাকে উৎসাহ কিংবা অবহেলা করার জন্য নয় বরং একজন সত্যিকার পাঠকের দৃষ্টিতে বইটা আমার কেমন লেগেছে তা জানিয়েছি এবং জানাচ্ছি।কোথাও খারাপ লাগলে রাখঢাক ছাড়াই অকপটে বলেছি অমুক অংশটি মোটেই আমার কাছে ভাল লাগেনি আবার যে অংশ ভাল লেগেছে সেটুকু সম্পর্কে বলেছি অসাধারণ।পাঠক হিসেবে আমি আমার মতামত দিতেই পারি এবং লেখক হিসেবে সেটাকে নেগেটিভ বা পজেটিভ যে কোন ভাবেই আপনি নিতে পারেন।

অধিকাংশ পাঠক সাধারণত বিখ্যাতদের লেখা পড়েই অভ্যস্থ। সে ক্ষেত্রে অনেক নবীন লেখকের কখনো কখনো খুবই মান সম্মত লেখাও আমাদের পড়া হয়ে ওঠেনা।আবার তাদের বইও কেনা হয়না এটা ভেবে যে সীমিত বাজেটে বই কেনার ক্ষেত্রে পছন্দমত বই কিনেই টাকায় কুলায়না সেখানে অপরিচিত নতুন কোন লেখকের বই কেনার সুযোগ কোথায়। আমি মাঝে মাঝে কিনি কিংবা অনেকেই বইয়ের সৌজন্য কপি দেয়।আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

আমি মনে করি যে গার্লফ্রেন্ডকে দামি দামি বই উপহার দেওয়ার পরও বইয়ের একটা পেজ উল্টিয়ে দেখেনা তাকে বই উপহার দেওয়ার চেয়ে আমার মত কোন দিন না দেখা অপরিচিত মধ্যমানের পাঠককে বই দেওয়া ভাল।কোন লেখক বন্ধু থাকলে আমাকে বই পাঠাতে পারেন।চেয়ে নিচ্ছি বলতে পারেন।আমি জানি কত বন্ধুকেইতো সৌজন্য কপি দিবেন তারা পড়েও দেখবে না সেখানে আমি অবশ্যই পড়ে দেখবো।(বি.দ্র: বই চাচ্ছি বলে আমার কিন্তু নিজেকে ছ্যাচড়া মনে হচ্ছেনা।)একটা কথা ভাবতে হবে মানুষকে বই সেধেও পড়ানো যায়না সেখানে আমি নিজে পড়তে চাচ্ছি। উদাহরণ হিসেবে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের গাড়ি গুলোর কথাই ধরুন।বাড়ির পাশে এসে দাড়িয়ে থাকে কিন্তু আমরা ঢু মারার সুযোগও পাইনা।

এখন কাজের কথায় আসি।আপনাদের স্নেহ ভালবাসায় আমি ধন্য।আমাকে কত মানুষ স্নেহ করে,আদর করে ভালবাসে তার প্রতিদান দেবার মত ক্ষমতা আমার নেই।তাদের স্নেহ ভালবাসাও মহত্ত্বের পরিচায়ক।এতো স্নেহ দেখানোর পরও কত জনই নিজেকে আড়ালে রাখতে ভালবাসে ঠিক যেমন আমি নিজেও আড়ালে থাকতে ভালবাসি। আমার কাজে লাগবে এমন বেশ কিছু বই আজ উপহার পেলাম। ধন্যবাদ কিংবা কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শেষ করা যাবেনা তাই ওদিকে যাচ্ছিনা। আমি জানি বই গুলো অনেক দিন আমাকে অনেক কিছু শেখাবে। সেই অনেক কিছু থেকে একটুও যদি অন্যদের জানাতে পারি তবে সেটাকেই মনে করবো ভালবাসার প্রতিদান দেওয়া।

আজ একজন আমাকে যে বই গুলি উপহার হিসেবে দিয়েছেন তার তালিকা:
• জীবন জয়ের গল্প-দেওয়ান সাফায়েত-কথা প্রকাশ।
• নাটকের ক্লাশ-ডক্টর রাজীব হুমায়ুন-সূচীপত্র।
• বিশ্ব সাহিত্যের ক্লাসরুমে-মুহম্মদ আকতার হোসেন-আগামী প্রকাশনী।
• সাহিত্য তত্ত্ব-মাহবুবুল আলম-খান ব্রাদার্স এন্ড কোম্পানী।
• শুন্য থেকে বিশ্বজুড়ে-ফাবিহা তনিকা-দেশ।
• নোবেল ভাষণ (চার খন্ড আলাদা আলাদা)-হায়াৎ মাহমুদ-ইত্যাদি গ্রন্থপ্রকাশ।( Niaz Chowdhury Tuli ভাইয়া প্রচ্ছদ করেছেন)।
• সাহিত্য চর্চা-বুদ্ধদেব বসু-মাটিগন্ধ্যা।
• বস্তুবর্গ-মোস্তাফিজ কারিগর-কাগজ প্রকাশন।
• পড়শি-মীম নোশিন নাওয়াল খান-বিদ্যাপ্রকাশ।
• সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী-মিজান রহমান-বিশ্বসাহিত্য ভবন।
• বিশ্ব সাহিত্যের নয় রত্ন-কবীর চৌধুরী-কথা প্রকাশ।

আমি বিশ্বাস করি বই গুলো আমার জন্য বেশ কাজের।তিনি আরো বলেছেন পছন্দের আরো কিছু বই উপহার দিবেন।বই গুলো পড়ার পর আমি চেষ্টা করবো কি শিখলাম,কি জানলাম তা অন্যদের সাথে শেয়ার করতে।
———————————————————

ধন্যবাদান্তে:

জাজাফী (Zazafee)
প্রযত্নেঃ টি এ এম আখতারুজ্জামান
ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড
বাসা:৭৯,গাউসুল আজম রোড,সেক্টর-১৪
উত্তরা,ঢাকা-১২৩০
ইমেইলঃ [email protected]
ওয়েবসাইটঃ www.zazafee.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.