কি শিক্ষা দিচ্ছে কোমল মতি শিশুদের

বাংলাদেশের সেই সব অভিভাবকদের কাছে আমাদের প্রশ্ন যাদের সন্তানদের দেশ সেরা স্কুলে ভর্তি করানোর জন্য সকাল সন্ধ্যা বাচ্চার উপর বইয়ের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছেন এবং কেউ কেউ মোটা অংকের ডোনেশান দিয়েছেন আপনারা কি বলতে পারেন যদি নামি দামি সেই সব স্কুলে বাচ্চাকে ভর্তি করানোর পরও সেই বাচ্চাকে সেই স্কুলের স্যারদের কাছে কিংবা অন্য কোন স্যার বা কোচিংএ প্রাইভেট পড়াতেই হবে তাহলে নামি দামি স্কুলে ভর্তি করে লাভ কি?

যে টাকা ওই স্কুলে ভর্তির জন্য বাচ্চার পিছনে খরচ করেছেন কিংবা ডোনেশান দিয়েছেন কিংবা কোচিং প্রাইভেট করে খরচ করেছেন সেই টাকা আপনার হাতে রাখুন। বাচ্চাকে বাসার পাশের অখ্যাত কোন স্কুলে ভর্তি করান। তার পর সেই হাতে রাখা টাকা গুলো বাচ্চার পড়াশোনার এবং সার্বিক কল্যানের জন্য খরচ করুন। দেখবেন আপনার বাচ্চা ওই সব নামি দামি স্কুলের সেরা ছাত্র ছাত্রীর চেয়ে কোন অংশেই খারাপ রেজাল্ট করবে না। বরং তার উপর প্রেশার কম থাকায় সে বরং পড়াশোনার পাশাপাশি কোকারিকুলার একটিভিটিস গুলোতেও ভাল করবে।তাদের শৈশব কৈশর হারিয়ে যাবেনা।

মূল কথা হচ্ছে ভাল স্কুলে ভর্তির জন্য যদি এতোই দৌড়ঝাপ করবো তাহলে কেন বাচ্চাকে ধর্ম কিংবা শারিরীক শিক্ষা বিষয়েও স্কুলেরই টিচারের বাসায় প্রাইভেট পড়তে যেতে হবে? ভাল স্কুল নামি দামি স্কুল তাহলে আপনার বাচ্চাকে কি দিচ্ছে? সেই স্কুলে ভর্তি করানোর জন্য কেন তবে উঠে পড়ে লেগেছেন? আপনি জানেন যে আপনি নিজে আপনার সন্তানের মেধাকে আপনার সন্তানের সুন্দর শৈশব কৈশরকে ধ্বংস করছেন! নাহ এই সহজ কথাটা বোঝার মত জ্ঞান সৃষ্টিকর্তা আপনাকে দেয়নি।


কোচিং প্রাইভেটে যদি যেতেই হয় তাহলে নামি দামি স্কুল আর ঘরের পাশের সাধারণ স্কুলের মধ্যে পার্থক্য কোথায়? চলুন তবে বুয়েট মেডিকেল ঢাকা ভার্সিটি বা অন্য যে কোন ভার্সিটিতে যে কোন বিভাগে গিয়ে খোজ নিয়ে জেনে নেই কে কোন স্কুল থেকে পড়ে এসেছে। অধিকাংশই গ্রাম থেকে মফস্বল শহর থেকে এসেছে। আমি দিনাজপুরের কথাই বলি। দিনাজপুরের সাধারণ স্কুল থেকে যে হারে বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট মেডিকেলে চান্স পাচ্ছে এই শহরের নামি দামি স্কুল থেকে পাশ করা ছাত্ররা আনুপাতিক ভাবে সেই হারে চান্স পাচ্ছেনা।

সাধারণ স্কুলের ছাত্রটির জন্য যা ব্যয় হয়েছে তার দশগুন ব্যয় হচ্ছে শহরের ছাত্র ছাত্রীর জন্য। এই যে ব্যয় হচ্ছে এটা তৈরি করেছি আমরা নিজেরা অভিভাবকেরা। আমার মনে করছি ভাল স্কুলে ভর্তি না করলে আমাদের সন্তানেরা ভাল মানুষ হতে পারবে না প্রতিষ্ঠিত হতে পারবেনা। এটা সম্পুর্ন ভুল ধারনা। বেরিয়ে আসুন আপনাদের দিবাস্বপ্ন থেকে। বাস্তবতা বুঝতে চেষ্টা করুন। এই সব শিক্ষাবানিজ্যের বিরুদ্ধে এখনি সোচ্চার হোন। নতুবা আপনার আমার সন্তান ভাই বোন কাগজে কলমে ভাল রেজাল্টধারী হবে কিন্তু বাস্তব জীবনে কি হবে সেটা সময়ই বলে দেবে।


প্রাইভেট এবং কোচিং যেখানে করতেই হচ্ছে সেখানে নামি দামি স্কুলে পড়ানো আর না পড়ানো সমান কথা। বরং ওই সব প্রতিষ্ঠান একই সাথে আপনার সন্তানের উপর নানা প্রেশার তৈরি করছে এবং আপনার পকেট খালি হচ্ছে। তাই মিছেই ভ্রমের পিছনে ছুটবেন না। বাচ্চার ভবিষ্যতের কথা যদি চিন্তা করতেই হয় তবে ভেবে দেখুন আপনি ভুল পথেই এগোচ্ছেন।