পৃথিবীর সর্বশেষ রাজকন্যা তোমাকে

প্রিয়ভাষিনী

আজ সম্ভবত প্রথমবারের মত তোমাকে লিখছি।প্রথমবারের মত লিখছি বলতে চিঠি লিখছি।এর আগে তোমার সাথে অনেক বার কথা হয়েছে কিন্তু কখনো এমন করে চিঠি লেখা হয়নি।যদি তুমি এই চিঠি পড়ে থাকো বা পেয়ে থাকো তবে মনে রেখো চিঠিটা শুধু তোমাকেই লিখছি।আশা করি অনেক ভালো আছ।শুধু আশা নয় আমার বিশ্বাস এ কটা দিন তুমি আগের চেয়ে বেশি ভালো আছে।এ কটাদিন যে চৈমনি রাজ্যের পাগল রাজপুত্র তোমায় ক্ষণে ক্ষণে জ্বালাতন করেনি।

পৃথিবীর সর্বশেষ রাজকন্যা

তোমার জন্য কোন উপহার নয় কোন ফুল নয় কোন দামী সামগ্রী নয় কিছুই আনিনি শুভেচ্ছার ডালা সাজিয়ে।হ্যা তোমাকেই পৃথিবীর সর্বশেষ রাজকন্যা বলেছি।অন্তত আমার ভাষায় এটাই সত্যি।কফির কাপে চুমুক দিতে দিতে যখন তোমায় লিখছি তখন তুমি অনেক দূরে।ঠিক কত দূরে তা আমার জানা নেই।জানা নেই ঠিক এই সময়ে তুমি কি করছো।আমি যখন তোমায় নক করিনি তখন তুমি নিশ্চই ভেবেছ যাক ভালো হলো মানুষটার যন্ত্রনায় আর বাচিনা।কিন্তু তোমাকে অবাক করে দিয়ে আবার ফিরে এলাম।একবুক ভালোবাসা দিতে পারি বা না পারি সে কথা দিতে পারবো না তবে কখনো দুঃখ দেবোনা এটা অন্তত কথা দিতে পারি।

সুহাসিনী

ক্রেমলিন থেকে মস্কো কিংবা আরো দূরে প্যারিস থেকে আগ্রা হয়ে তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে এমন কোন ভূবন আমি তৈরি করবো যেখানে তোমাকে দুঃখ দেওয়ার মত কেউ থাকবে না।মেসিরা ফুটবলে গন্ডায় গন্ডায় গোল খেয়ে কাদলে কাদুক তোমাকে যেন কাদতে না হয়।কিন্তু এসব নিছক আমার কল্পনা ছাড়া কিছু নয়।দিনের আলো নিভে যেতে যেতে যখন আরেকটা রাত নেমে আসে তখন মনে হয় জীবনে আরো একটি দিন নিছক ছেলেমানুষী করে কাটিয়ে দিলাম।চা বাগানের প্রতিটি সবুজ পাতায় যখন ভোরের শিশির জমে থাকে তখন সেটাতে সুর্যের আলো পড়ে চিকচিক করে।তোমার হাসিটাও ঠিক তেমনই।হীরে বসানো সোনার ফুলের মতই দামী সেটা আমার কাছে।

স্বর্ণকিশোরী

কত কিছু লিখতে ইচ্ছে ছিলো তোমাকে কিন্তু লিখে আর কি হবে বলো।তোমার কি আর অতো সময় আছে চৈমনি রাজ্যের ভিখারী রাজপুত্রের লেখা পড়ে সময় নষ্ট করার।তোমার প্রতিটি মুহুর্ত কতনা দামী।দূরে বসে প্রতিদিন প্রতিক্ষন যখন তোমায় ভাবি মনে হয় তুমি দূরে নও এইতো আমার আঙ্গীনা জুড়ে।হৃদয়ের প্রতিটি ভাজে ভাজে তোমায় খুজে পাই।তুমি বাস্তবে থাকো বা না থাকো জেনে রেখো আমি এমন করে তোমায় আজীবন খুজে নেব হৃদয় থেকে হৃদয়ে।

ভরা পুর্নিমার সমস্ত জোছনা তোমার জন্য।সুনীল আকাশে ভেসে যাওয়া সাদা মেঘ গুলো তোমার জন্য।বর্ষায় গ্রামে গ্রামে যত কদম ফুল ফোটে তাও তোমার জন্য।তোমার জন্য আমার এক আকাশ নীল,তোমার জন্য শাপলায় ঘেরা আমার নকখোলার বিল।আকাশে ডানা মেলা শঙ্খচিল।তোমার জন্য সমুদ্রের সবগুলো ঢেউ,লুকা প্যাসিওলির সবগুলো সমীকরণ,সূত্র।তোমার জন্য পিসার হেলানো টাওয়ার,চীনের মহাপ্রাচীর,মস্কোর ঘন্টা,ব্যাবিলনের শুন্যউদ্যান কিংবা আগ্রার তাজমহল এসবের কোনটাই দেবার ক্ষমতা আমার নেই।তোমার জন্য আমারা শুধু জোড়াতালি দেওয়া ভালোবাসাটুকু আছে।তা যদিও তোমার কোন কাজে আসবে না তবুও ভাবছি যত্ন করে রেখে দেই।যদিও কখনো তোমার দরকার হয় তখন তুমি নিও।

মুক্ত বিহঙ্গের মত আকাশে উড়ে বেড়াও হে শতডানার রঙীন প্রজাপতি।তোমার জন্য এ আমার অনন্ত শুভকামনা।

তোমাকে ভাবনা করি প্রিয়

জাজাফী

২৬ জুন ২০১৮

তুমি এখন ব্যস্ত ভীষণ

কথা হয়না মোটেও

আগের মত দেখিনা আর

হাসি তোমার ঠোটেও।

আগের মত তোমার জন্য