কাচের চুড়ি

ছোট্ট মেয়েটি হাসি মুখে মায়ের শোকেসের সামনে গিয়ে দাড়ায়।ড্রয়ার খুলতেই চোখে পড়ে একগোছা কাচের চুড়ি। চুড়িগুলোর দিকে অপলোক দৃষ্টিতে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থেকে কন্ঠে সবটুকু দরদ মিশিয়ে মায়ের গলা জড়িয়ে ধরে বলে মা এই চুড়ি গুলো আমি হাতে পরি? মা তার ছোট্ট রাজকন্যার কথা শুনে হাসে।নিজ হাতে ড্রয়ার থেকে চুড়ি গুলো তুলে নিয়ে ছুয়ে দেখে। ভেসে ওঠে এগার বছর আগের স্মৃতি। কলেজে পড়াকালিন সময়ে বৈশাখী মেলা থেকে কেনা চুড়ি গুলো এখনো সে যত্ন করে রেখে দিয়েছে। সে কী আর জানতো একদিন তার মেয়ে এই চুড়ি হাতে নেওয়ার জন্য সখ করবে। কাচের চুড়ি সাধারণত কেউ এতোদিন যত্ন করে রাখে না কিন্তু তিনি রেখেছিলেন। তারমনের মধ্যে এক কিশোরী বালিকা যেন স্বপ্ন বুনে দিয়েছিল চুড়ি গুলো রেখে দিও যত্ন করে। একদিন তোমার কোল জুড়ে আসবে একরাজকন্যা। সেই রাজকন্যার বয়স যখন ছয় বছরে পড়বে তখন সে আনমনে তোমার ড্রয়ার খুলে চুড়িগুলোর দিকে মুগ্ধ হয়ে তাকিয়ে থাকবে। তার পর বলবে মা চুড়ি গুলো আমি একটু পরি?

ছোট্ট এই রাজকন্যাটির নাম সুবাইতা। পুরো নাম জাফনা সুবাইতা হাসান। মা বাবার একমাত্র আদরের সন্তান। ওর হাতের চুড়ি গুলো মায়ের কলেজ জীবনের স্মৃতি। কিছু কিছু স্মৃতি এমনই মধুর হয়,ভালোবাসায় বেঁধে নেয় জীবনের পরতে পরতে।

20 জুন 2021