ইরেজার

জাজাফীর মন ভালো নেই।শাহ মখদুম হল থেকে বেরিয়ে হাটতে হাটতে বঙ্গবন্ধু হলের সামনে দিয়ে শামছুজ্জোহার সমাধি পেরিয়ে সে তখন একাকী হাটছে প্যারীস রোডে।কোন কিছুই তার

চারিত্রিক সনদপত্র ও অন্যান্য

বিকেল গুলো এখন বিষন্ন হয়ে উঠেছে।রাত জেগে ফেসবুক ইউটিউবে ঘুরাঘুরি করে সকালে ঘুমোতে গেলে ঘুম ভাঙে দুপুরে।যতক্ষণ ঘুমিয়ে থাকি কোন চিন্তা নেই কিন্তু বিকেল যেন

টুনির মায়ের জন্মদিন

মুমু! মানে টুনির মা। দুই অক্ষরের একটি নাম।ভারি সুন্দর।ভারি সুন্দর তার কথা বলা,তার কিশোরী বয়সের উচ্ছলতা তার হাসি তার দুষ্টুমী।সে খুব ছবি তুলতে ভালোবাসে।দুই ভাই

চারিত্রিক সনদপত্র ও অন্যান্য

বিকেল গুলো এখন বিষন্ন হয়ে উঠেছে।রাত জেগে ফেসবুক ইউটিউবে ঘুরাঘুরি করে সকালে ঘুমোতে গেলে ঘুম ভাঙে দুপুরে।যতক্ষণ ঘুমিয়ে থাকি কোন চিন্তা নেই কিন্তু বিকেল যেন

চিঠিওয়ালার খোঁজে

—জাজাফী কোটালিপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে একটু অদুরেই সুন্দর পরিপাটি পোষ্টঅফিস।মোবাইল ইন্টারনেটের যুগে এখন আর কেউ তেমন একটা চিঠি লেখেনা বলেই পোষ্টঅফিসটাকে পরিত্যাক্ত মনে হয়।মানুষ মনে

মানিক জেনারেল স্টোর

–জাজাফী মধুমিতা রোড দিয়ে ঢুকে একটু সামনে এগোতেই হাতের ডানে মোড় নিয়েছে একটি সরু গলি।গলির এই রাস্তাটি আরিচপুরের মধ্য দিয়ে সোজা গিয়ে মিশেছে টঙ্গী বাজারে।আইসক্রিম

ফারাক্কা বাঁধঃদ্বিমূখী সংকটে বাংলাদেশ

–জাজাফী – উভয় সংকট বলে একটা কথা প্রচলিত আছে।দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ যার ভুক্তভোগী।ফারাক্কা বাধ বাংলাদেশের জন্য উভয় সংকট তৈরি করেছে।অনেকটা গলায় কই মাছের কাটা ফোটার

1 3 4 5