আমরা আনিবো রাঙা প্রভাত

এ বছর যাদের এইচএসসি দেওয়ার কথা ছিলো তারা কেমন আছে? তাদের উপলব্ধি কি? একদিন না একদিনতো নিশ্চই সব স্বাভাবিক হবে এবং তারা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে কেউ মেডিকেলে পড়বে,কেউ ইঞ্জিনিয়াং এ পড়বে, কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করবে এবং এই পড়াশোনার মধ্যেই কেউ কেউ রাজনীতিবিদ হবে। তারাতো সবাই বর্তমান অবস্থা বেশ ভালো উপলব্ধি করার কথা। আজ থেকে পনের বছর পর তাদের অবস্থান কেমন হবে? ছোট হলেও তারা নিশ্চই উপলব্ধি করতে পেরেছে আমরা কত কিছুতে পিছিয়ে আছি। আপদকালিন সময়ে আমাদের বুঝতে বাকি নেই ঠিক কোন কোন দিকে আমরা কতটা পিছিয়ে আছি। এই সময়ে যারা এইচএসসি পরীক্ষার্থী তারা কি অন্তত শপথ নিতে পারবে যে ভবিষ্যতে তারা এমন ডাক্তার হবে যারা এই আপদকালিন সময়ের সেই সব অকুতভয় সেনানীদের মত জীবন বাজি রেখে আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত হবে। যারা ইঞ্জিনিয়ার হবে যারা বিজ্ঞানী হবে তারাকি এমন শপথ নিতে পারবে যে ভবিষ্যতে তারা এমন পরিবেশ তৈরি করবে যেন যে কোন বিপদ মুহুর্তেই মোকাবেলা করা যায়। যারা রাজনীতিবিদ হবে তারা কি শপথ নিবে যে তারা এমন ভাবে রাজনীতি করবে যেন তাদের প্রতিটি পদক্ষেপ হয় জনকল্যাণকর এবং জীবনের শেষ দিন অব্দি তারা সেই কল্যাণকর কাজে নিজেদের নিয়োজিত করবে। যারা শিক্ষার দায়িত্ব নিবে তারা কি এমন পদ্ধতির ব্যবস্থা করবে না যা শিক্ষাবান্ধব।

এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের আমি আহ্বান করতে চাই এমন একটি সংগঠন গড়ে তুলতে যেখানে তারা এক হয়ে থাকবে সুন্দর আগামী গড়ার লক্ষ্য নিয়ে। ” আমরা আনিবো রাঙা প্রভাত” প্রতিপাদ্যকে ঘিরে আমি একদল শিশু, কিশোর কিশোরী,তরুণ-তরুণী এবং যুবক-যুবতী খুঁজছি যারা জীবনের তরে শপথ নিয়ে একটি উজ্জ্বল,সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে নিজেদের সমস্ত সুখ,স্বপ্ন বিসর্জন দিবে এবং শেষ দিন অব্দি লড়াই করবে। যারা কোন দলের হবে না কোন গোত্রের হবে না বরং তারা হবে সকলের তরে সকলে আমরা প্রত্যেকে আমরা পরের তরে। আমার এই আহ্বানের সাথে যারা একাত্বতা ঘোষণা করতে চাও তারা যোগ দাও। কমেন্ট করো,শেয়ার করো এবং সেই সব অকুতভয় সেনানীদের একত্র করো। তার পর চলো আমরা নতুন একটি বাংলাদেশ গড়ার জন্য ঐক্যবদ্ধ হই। আওয়াজ তোলো। ঐ নতুনের কেতন ওড়ে।

–জাজাফী
২০ জুন ২০২০
https://www.facebook.com/groups/323166482014703/