বই নিয়ে “আমার কিছু বলার ছিল”

আজই শেষ করলাম আনিসুল হকের লেখা “সেলাই” উপন্যাসটি। পড়ে কেমন লেগেছে তা জানানোর জন্যই মুলত আজকের এই লেখাটি। হতে পারে এই লেখা পড়ে কারো কারো উপন্যাসটি পড়তে ইচ্ছে করবে। আবার এও হতে পারে আমার উপস্থাপনার দুর্বলতার কারণে অনেকেই বইটি পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। কিন্তু এই বইটির পটভূমিই হয়তো আমার রিভিউয়ের দুর্বলতা থাকার পরও পাঠককে পড়তে

আনিসুল হকের মা উপন্যাস

  এই মাত্র পড়ে শেষ করলাম মা উপন্যাসটি।বহু বছর আগে ম্যাক্সিমগোর্কির লেখা বিশ্ববিখ্যাত উপন্যাস “মা” পড়েছিলাম।তখন আমার বয়স অনেক কম ছিল এবং সাহিত্য তখন এখনকার চেয়েও অনেক কম বুঝতাম।যদিও এখনো বলার মত তেমন কিছু বুঝিনা তার পরও পড়াশোনার পরিধি বাড়ার পাশাপাশি বয়সের ছুটেচলায় কিছুটা বুঝতে শিখেছি।আনিসুল হকের লেখা মা উপন্যাসটিকে তাই বিশ্বসাহিত্যের অংশ বলে মনে

শেষের কবিতাঃ যে ভালবাসায় সমাপ্তি ছিলনা

নোবেল পুরস্কার প্রাপ্তি নিঃসন্দেহে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে অনেক বড় করে তুলেছে। তবে নোবেল পুরস্কারকে এক পাশে সরিয়ে রাখলেও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা সাহিত্যের সবর্কালের সেরা লেখক কবিদের মধ্যেই শ্রেষ্ঠতম। একমাত্র মহাকাব্য ছাড়া সাহিত্যের প্রায় সব শাখায় তাঁর ছিল অবাধ বিচরণ। এবং সাহিত্যের যে শাখাতেই তিনি হেটেছেন সেখানেই রেখে গেছেন তার পায়ের স্থায়ী ছাপ। সেই ছাপ কোন কালেও